অনলাইনে ইনকাম করার সেরা ৫টি উপায়

অনলাইনে ইনকাম করার ৫টি উপায়:আপনি কি অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে চাচ্ছেন?তাহলে আজকের ব্লগটি আপনার জন্য। কারণ
আজকের ব্লগে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করবো অনলাইনে টাকা ইনকাম করার সেরা ৫টি উপায় সম্পর্কে।
আপনি যদি গুগলে " অনলাইনে টাকা ইনকাম " লিখে সার্চ দেন তাহলে অনেক ব্লগ বা ভিডিও পেয়ে যাবেন কিন্তু তারা PTC সাইট সাজেস্ট করবে বা এমন কিছু এপের কথা বলবে যেগুলো থেকে আপনি রেফার করে বা এড দেখে ইনকাম করতে পারবেন।আমি এটা বলছিনা যে এইগুলো থেকে ইনকাম করা সম্ভব নই,কিন্তু কথা হলো এই ধরনের সকল পদ্ধতি স্থায়ী নয়।এগুলোর কয়েকদিন পরেই খোজ থাকেনা।

তাছাড়াও অনেক সময় দেখা যায় তারা আপনাকে দিয়ে এড দেখিয়ে নিলেও,পেমেন্টের সময় অনেক সমস্যা করে মানে আপনার টাকা শেষ।এগুলো থেকে বিরত থাকবেন।
তো যাইহোক চলুন আজকের ব্লগে জেনে নেওয়া যাক এমন ৫টি অনলাইন ইনকামের উপায় সম্পর্কে।যেগুলো শেয়ার করবো সেগুলো থেকে একটাতেও যদি মন দিয়ে কাজ করতে পারেন তাহলে আপনি স্থায়ী ভাবে মোটামুটি ভালো টাকা ইনকাম করতে পারবেন অনলাইনে।

ভিডিও বানানো - অনলাইনে টাকা ইনকাম

ভিডিও ক্রিয়েশন সেক্টর নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই।আপনি আমি সবাই ভিডিও দেখতে পছন্দ করি।বর্তমানে সারা বিশ্বে সেরা দুইটি ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম হলো Facebook এবং Youtube।

আপনি নিজের ভিডিও বানিয়ে সেগুলো এই সাইট গুলোতে পাবলিশ করে মনিটাইজ করার মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণের ইনকাম করতে পারেন।এই সেক্টরটি বর্তমানে একটি সম্ভবনার পথ।এই প্ল্যাটফর্ম গুলো আমাদের দেশ সহ সারা বিশ্বের প্রচুর পরিমাণের তরুণ তরুণী ভিডিও ক্রিয়েট করছে এবং ইনকাম করছে।চাইলে এটি ট্রাই করতে পারেন।

এফিলিয়েট মার্কেটিং - অনলাইনে টাকা আয়

এফিলিয়েট মার্কেটিং ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে একটি জনপ্রিয় নাম।এই সেক্টরে প্রচুর তরুণ তরুণীরা কাজ করছে এবং মোটা টাকা ইনকাম করছে।
এফিলিয়েট মার্কেটিং কী? 
ধরুন আমার একটা website আছে এবং সেখানে ট্রাফিকও ভালো আসে। আর এদিকে ধরেন আপনার একটি অনলাইন বিজনেস আছে।তখন আমি ধরেন আপনার কাছে আসলাম এবং বললাম যে আমাকে আপনার সাইটের অনলাইন শপিং করার কুপন দেন

যেটা এপ্লাই করে আমার audience তার কাংখিত প্রোডাক্টের ক্ষেত্রে তিনি কিছু ডিসকাউন্ট পাবেন এবং যতজন এই কূপন ব্যবহার করে শপিং করবেন তার মধ্যে আমাকে আপনি কিছু কমিশন দিবেন এবং আপনার শপটিকে আমি আমার সাইটে প্রোমোট করবো।ঠিক এভাবেই মুলত কাজটি সম্পন্ন হয়ে থাকে।চাইলে এটি ট্রাই করে দেখতে পারেন।সবচেয়ে জনপ্রিয় এফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস হলো amazon এবং clickbank।
ব্লগিং - অনলাইনে টাকা আয়

আপনি বর্তমানে এখন যেই লেখাটি পড়ছেন সেটাও কিন্তু একটা ব্লগিং সাইট ।এখানে আমি প্রযুক্তি নিয়ে বিভিন্ন আর্টিকেল লিখে থাকি।
আপনি যদি আপনার ফেস দেখাতে না চান বা আপনি যে কোনো একটা বিষয় নিয়ে ভালো লিখতে পারেন যেমনঃ আমি প্রযুক্তি নিয়ে লিখছি,আমি মনে করি আপনার জন্য লেখালেখি বেস্ট আইডিয়া।

কারণ এখানে আপনার ফেস দেখাতে হচ্ছে না এবং আপনি একটি ওয়েবসাইট বানিয়ে লেখালিখির শুরু করে দিতে পারছেন । এখন বলি এখানে থেকে ইনকাম টা মূলত করবেন কিভাবে? 

আপনি যখন আমার সাইটে এই লেখাটি পড়ছেন তখন হয়তো আমার ওয়েবসাইটে কোন ad শো করছে না বাট কয়েকদিন পরে আমি আমাদের সাইটকে গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে মনিটাইজ করব এবং আমাদের ওয়েবসাইটে এড শো করবে যেখান থেকে আমি মোটামুটি একটা স্মার্ট ইনকাম করতে পারবো। এছাড়াও আপনি আপনার সাইটে বিভিন্ন কোম্পানির প্রোডাক্ট রিভিউ করেও ভালো পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন। 
রিসেলিং - ইন্টারনেটে টাকা আয়

রিসেলিং জিনিসটা অনেকটা এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মতই। এখান থেকে আপনি মোটামুটি ভালো একটা অ্যামাউন্ট ইনকাম করতে পারবেন,যদি আপনি কাজটি ভালো করে করতে পারেন। যদব আপনার মার্কেটিং স্ট্রাটেজি সম্পর্কে ভালো জ্ঞান থাকে তাহলে আপনি অনেক ভালো ইনকাম করতে পারবেন রিসেলিং করার মাধ্যমে। 
রিসেলিং টা আসলে কি? 
ধরেন আমার একটা কোম্পানি আছে যেখানে আমি প্রত্যেকটি টি শার্ট বিক্রি করি ২০০টাকায় এবং আপনার একটা পেজ আছে টি-শার্ট নিয়ে এবং আপনি আমার কাছে আসলেন আর বললেন যে ভাই আপনি আমাকে টি-শার্ট দেন, আমি আপনার টি-শার্ট বিক্রি করে দিবো এবং ২০০এর উপরে যত টাকা বিক্রি করতে পারব সেটা আমার এবং 200 টাকা আপনার। 

ব্যাপরটা অনেকটা win win সিচুয়েশন তৈরি হবে যাতে দুইজনের লাভ।বাংলাদেশে এমন অনেক অনলাইন রিসেলিং প্ল্যাটফর্ম আছে। আপনি একটু খুঁজলেই পেয়ে যাবেন আমি নাম বলছি না কারন তাহলে free promotion হয়ে যাবে। তো চাইলে আপনি এটি ট্রাই করতে পারেন।

ফ্রিল্যান্সিং - অনলাইনে টাকা আয়

ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। হয়তো আপনি আমার থেকে ভাল জানেন ফ্রিল্যান্সিং সেক্টর নিয়ে। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরটা শুধু বড়ই হচ্ছে। বাংলাদেশের অনেক তরুণ-তরুণী ফ্রিল্যান্সিং করার মাধ্যমেই নিজেদেরকে স্বাবলম্বী করে তুলছে।

ফ্রিল্যান্সিং চাইলে আপনি ঘরে বসেই করতে পারবেন। ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য আপনার দরকার হবে একটি কম্পিউটা বা স্মার্টফোন,যেকোনো একটা বিষয়ে প্রচুর ধারণা বা ওই বিষয়ে আপনাকে অনেক স্কিলড হতে হবে আর লাগবে ইন্টারনেট কানেকশন। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে সবচেয়ে জনপ্রিয় কয়েকটি স্কিল হচ্ছেঃ
• Graphics Design
• Web Development
• Digital Marketing
• Video Editing
• Content Writting

এখন আমি যদি সবগুলো স্কিলের কথা বলতে চাই তাহলে দেখা যাবে আপনারা এই আর্টিকেলটি পড়া হয়ে উঠবে না। 

যাইহোক এগুলো থেকে যেকোনো একটা বিষয়ে আপনি স্কিলড হয়ে মার্কেটপ্লেসে আসতে পারেন এবং মাসিক মোটামুটি ভালো একটা পরিমাণের ইনকাম করতে পারবেন। আমার দেখা অনলাইনে টাকা এর সবচেয়ে ভালো উপায় ফ্রিল্যান্সিং করা। 

শেষকথা
আজকের অনলাইনে ইনকাম করার ৫টি উপায় আর্টিকেলে এগুলোই ছিলো । আশা করি আজকের ব্লগটি আপনার কাছে ভালো লেগেছে যদি ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই কমেন্ট করবেন। আমরা অনলাইনে টাকা আয় নিয়ে আরো আর্টিকেল লিখবো, সেগুলো জানতে আমাদের সাইটটি 3ডটে ক্লিক করে বুকমার্ক করে রাখুন।ধন্যবাদ